ইউটিউব ভিডিও শেয়ারিং এবং মোনিটাইজিং এর জন্য ইমো (imo) কি কার্যকর মাধ্যম হতে পারে? জেনে নিন!

ইমো কে (imo) কে ভিডিও শেয়ারিং এর একমাত্র মাধ্যম হিসেবে ব্যবহার করলে ভুল করবেন। আমাদের অনেকেরই ইউটিউব চ্যানেল আছে। আমরা সেগুলোতে ভিডিও আপলোড করি। অনেকেই টাকা আর্ন করার জন্য ভিডিও দেই। কিন্তু কপি পেস্ট ও নিম্নমানের কন্টেন্টের জন্য ভিউ কম হয় আর ভিজিটর কম আসে। সেক্ষেত্রে সাবস্ক্রাইব তো দূরের কথা। তাই আমাদের মধ্যে কেউ কেউ ভিন্ন মাধ্যম ব্যবহার করি ভিউ বাড়ানোর জন্য। তেমনই একটি মাধ্যম হলো ইমো মেসেঞ্জার (imo)। ইমো হলো অডিও এবং ভিডিও কল করার এপস্, যা ইতিমধ্যে ব্যপক জনপ্রিয়তা পেয়েছে। কিন্তু একে আমরা ইউজ করছি ইউটিউব ভিডিও শেয়ারিং এর কাজে। এটি অনেকের জন্য বিরক্তিকর ব্যপার। আপনি একবার ভেবে দেখুন, কেউ যদি ইমো শুধু কথা, মেসেজ আর ভিডিও কল করার জন্য ব্যবহার করে, তার কাছে কি অন্যদের ভিডিও দেখা সুখকর কিছু হবে? সে তো ইউটিউবেই যেতে পারে প্রয়োজনীয় ভিডিও দেখার জন্য। এই উটকো চাপের ফলে অনেকের বন্ধুত্ব নষ্ট হয়ে যেতে পারে। তাই এরকম করা আমাদের কারোরই উচিৎ না। এবার আসুন এর বিপরীতে কি করা যায় সেটা নিয়ে আলোচনা করা যাক।
আমরা আজ এমন একটি মাধ্যম নিয়ে কথা বলবো যেখানে আপনি অন্যকে বিরক্ত না করেই আপনার ইউটিউব ভিডিওর ভিউ বাড়িয়ে নিতে পারেন খুব সহজে। তাও আবার ফ্রি তে। আরও সুবিধা হলো এটা বাংলা সাইট যা বুঝতে কারো সমস্যা হবে না। আর এতে রয়েছে বাংলা টিউটোরিয়াল, যা দেখে যে কেউ খু সহজেই কাজ করার নিয়ম শিখে ফেলবেন।  এখানে ক্লিক করে ঘুরে আসুন আর টিউটোরিয়াল গুলোও দেখে আসুন  । এখানে আপনার ভিডিও লিংক প্রদান করে ছড়িয়ে দিতে পারেন সারা বাংলাদেশে। আর যারা সেটি দেখবে তারাও বাংলাদেশি আপনারই মতো কেউ।
ধন্যবাদ!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *